বাংলাদেশ, শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

ফেসবুকে আপত্তিকর মন্তব্য: সাজ্জাত ও ফখরুদ্দিনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা


প্রকাশের সময় :১৩ জুলাই, ২০২১ ৯:৩৮ : অপরাহ্ণ

চট্টগ্রামের করোনা আইসোলেশন সেন্টারের উদ্যোক্তা মোঃ সাজ্জাত হোসেন ও মোঃ ফখরুদ্দিন নামক দুইজনের বিরুদ্ধে দক্ষিণ চট্টগ্রামের সাতকানিয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

থানা সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম ফিল্ড হাসপাতালের উদ্যোক্তা ও প্রধান নির্বাহী ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়ার বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম করোনা আইসোলেশন সেন্টারের উদ্যোক্তা মো. সাজ্জাত হোসেন সোমবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি আপত্তিকর পোস্ট দেন। পোস্টের নিচে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামীলীগের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়ার বিষয়ে আপত্তিকর কমেন্ট করেন মো. ফখরুদ্দিন। পরে বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে সোমবার মধ্যরাতে সাতকানিয়া থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন সাতকানিয়া পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ জোবায়ের।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং ছোটভাই ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়াকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট ও মন্তব্য করায় ২ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে। মামলা নম্বর সাতকানিয়া থানা-১১। এ মামলায় দুইজনকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে নগরীর কোতোয়ালি থানায় ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়ার একজন কর্মচারী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরও একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে জানা যায়।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া এবং তার ছোটভাই ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়াকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলার বাদী হয়েছেন ডা. বিদ্যুৎ বড়ুয়ার একজন কর্মচারী।
কোতোয়ালী থানার (ওসি) মোঃ নেজাম উদ্দীন
মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও তিনি থানার বাইরে থাকায় এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানাতে পারেননি।

এই মামলায় অভিযুক্ত মুহাম্মদ সাজ্জাত হোসেন আওয়ামী লীগের সংস্কৃতি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য। তিনি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার চট্টগ্রাম মহানগরের সভাপতি এবং বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী বলে জানা যায়।
মামলার বিষয়ে সাজ্জাত হোসেন বলেন, আমি বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। ছোটবেলা থেকে অন্যায়ের প্রতিবাদ করে আসছি। বিএমডিসি স্বীকৃত ডিগ্রী না থাকার পরও নিজেকে জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ দাবি করে আসছেন বিদ্যুৎ বড়ুয়া। তিনি ফিল্ড হাসপাতালের আয়-ব্যয়ের হিসাব দেবেন বলে ফেসবুকে জানালেও এখনও দেননি। নিয়ম না মেনে ৪৫ বছর বয়সে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-পরিচালক পদে চাকরি নিয়েছেন। এসব বিষয়ে প্রতিবাদ করায় বড় ভাইয়ের ক্ষমতার অপব্যবহার করে আমার বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ বড়ুয়া মামলা করিয়েছেন বলে শুনেছি। বছরখানেক আগে অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ করায় একইভাবে এক ছেলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেছেন বিদ্যুত বড়ুয়া। তিনি আইনগতভাবে এই মামলা মোকাবেলা করবেন বলেও জানান।

সাজ্জাত হোসেনের ফেসবুক পোস্টে মোহাম্মদ ফখরুদ্দিন নামের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া ও তার ভাই ডা. বিদ্যুত বড়ুয়াকে নিয়ে একটি আপত্তিকর মন্তব্য করে পরক্ষণে তা মুছে ফেলেন বলে জানা যায়।

মামলার বাদী সাতকানিয়া পৌরমেয়র মোহাম্মদ জোবায়ের কে একাধিক বার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় এ বিষয়ে তার বক্তব্য জানা যায় নি। সাতকানিয়া থানায় করা মামলার এজাহার ও কোতোয়ালী থানায় করা মামলার এজাহার প্রায় অভিন্ন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

ট্যাগ :