বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

বৈধ অস্ত্রের যথেচ্ছ ব্যবহার (পর্ব-১) : পিস্তল হাতে ঝুট আলমের নাচের ভিডিও


প্রকাশের সময় :১১ ডিসেম্বর, ২০২০ ৩:৩৭ : পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক : কখনো ব্যবসায়ী হিসেবে কখনো বা রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ব্যক্তিগত নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে অস্ত্রের লাইসেন্স নেওয়ার হার দিন দিন বৃদ্ধি পেয়েছে৷ সেই সাথে এসব বৈধ অস্ত্রের যথেচ্ছ ও অবাধ ব্যবহার বেড়ে যাচ্ছে চট্টগ্রামে। এসব অস্ত্রের লাইসেন্সধারী প্রায় সকলেই ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মী হিসেবে পরিচিত৷ আর এসব বৈধ অস্ত্র গুলোর বড় একটি অংশ ব্যক্তিগত নিরাপত্তার চেয়ে নিজেদের শক্তিমত্তা প্রদর্শন ও নানান অপরাধ মূলক কর্মকান্ডে বেশী ব্যবহার হচ্ছে।

এই বৈধ অস্ত্রের যথেচ্ছ ব্যবহারের সর্বশেষ ঘটনাটি ঘটেছে গত ২ ডিসেম্বর রাতে নগরীর গোলপাহাড় মোড়ে। নিজের লাইসেন্স করা পিস্তল থেকে কোন কারণ ছাড়াই গুলি ছোড়ার অভিযোগ উঠেছে আলমগীর আলম নামের এক গার্মেন্টসের ঝুট ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে৷ আলমগীর আলম সবার কাছে ‘ঝুট আলম’ হিসাবে পরিচিত। গুলির করার ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ পিস্তলের গুলির ৭ টি খোসাও উদ্ধার করেছে ।

পাঁচলাইশ থানা পুলিশের পাশাপাশি গুলি ছোড়ার বিষয়টির ছায়া তদন্ত করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। অভিযোগ আছে কোন কারণ ছাড়াই ঝুট আলম তার লাইসেন্সকৃত পিস্তল থেকে যখন তখন গুলি ছুড়ে৷ এছাড়া বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে প্রকাশ্য পিস্তল হাতে ঝুট আলমকে নাচানাচি করতেও দেখা যায়। সিক্সটিন বাংলার হাতে তেমনই এক অনুষ্ঠানে ঝুট আলমের পিস্তল হাতে নৃত্যের ভিডিও ক্লিপ এসেছে৷ কোন এক গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে হলুদ পাঞ্জাবী পরিহিত আলমকে পিস্তল হাতে নাচতে দেখা যাচ্ছে।

২ ডিসেম্বর রাতে গুলি ছোড়ার বিষয়ে পুলিশ জানিয়েছে, পিস্তলটি আলমের নামে লাইসেন্স করা। অপব্যবহার করায় অস্ত্রের লাইসেন্সটি বাতিলের সুপারিশ করা হবে বলে জানা গেছে৷ ইতিমধ্যে সেদিনের ঘটনার ব্যবহৃত গাড়ীটি জব্দ করেছে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ। এই ঘটনায় থানা পুলিশের পাশাপাশি ছায়া তদন্ত করছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ।

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের বাসিন্দা আলম বায়েজিদ এলাকার বিভিন্ন গামেন্টসে ঝুটের ব্যবসা করেন। আতুরার ডিপো এলাকায় তার অফিস রয়েছে। নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটির দুই নম্বর সড়কে বসবাস করেন । আলম নিজেকে নগর যুবলীগের কর্মী হিসাবে পরিচয় দিয়ে থাকেন। নগর পুলিশের উত্তর জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) বিজয় বসাক জানান, গভীর রাতে গুলি ছোড়া ব্যক্তিকে আমরা শনাক্ত করেছি। তিনি নিজের নামে লাইসেন্স করা পিস্তল থেকে গুলি ছুড়েছেন। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ঘটনার দিন ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটি পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

২ ডিসেম্বর রাতে গুলি ছুড়ার ঘটনা তদন্তে কাজ করছেন পুলিশ

গুলি ছোড়ার বিষয়টি তদন্ত করছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। গোয়েন্দা বিভাগের (উত্তর-দক্ষিণ) উপ-কমিশনার মো. আলী। জানান, আলমগীর আলম নামে এক ব্যক্তি তার লাইসেন্স করা পিস্তল থেকে গুলি ছুড়েছিলেন। আলমকে আমরা ডেকেছিলাম, তিনি নিজের লাইসেন্স করা পিস্তল থেকে গুলি ছোড়ার করা স্বীকার করেছেন। কেন গুলি ছুড়েছেন তার সঠিক ব্যাখ্যা দিতে পারেননি তিনি।

যদিও ঘটনার ব্যাপারে আলম জানিয়েছেন, ওইদিন রাতে আলম তার এক বন্ধুকে নামিয়ে দিতে গোলপাহাড় এলাকায় গিয়েছিলেন। গাড়ি থেকে নামার পর ওখানে তাকে লক্ষ্য করে একজন গুলি ছুড়েছে এর জবাব দিতে তিনিও পাল্টা গুলি ছুড়েছে। তবে ঘটনাস্থলে থাকা সিসিটিভি ফুটেজ দেখে আলম’র এমন দাবিকে অসত্য বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা৷

আগামী পর্বে : বৈধ অস্ত্রের অপব্যবহার করে আলোচিতরা

ট্যাগ :