বাংলাদেশ, বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১

শিরোনাম

সবুজে ঢাকছে ঐতিহাসিক লালদিঘীর মাঠ : দৃশ্যমান হচ্ছে ইতিহাস আর ঐতিহ্য


প্রকাশের সময় :২৩ নভেম্বর, ২০২০ ৩:৩২ : পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদন : বীর চট্টলার নামটির সাথে ঐতিহাসিক লালদিঘীর ময়দানটিও মিশে আছে ইতিহাসের অংশ হয়ে হয়৷ বহু ইতিহাসের নীরব সাক্ষী নগরীর প্রাণ কেন্দ্রের এই লালদিঘীর মাঠ ময়দান। বিশেষ করে স্বাধীনতা পূর্ব ও পরবর্তি বাংলাদেশের রাজনৈতিক পালাবদলের অনেক কাহিনীর চিত্রায়ণ এ ময়দানকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে।

দেশের স্বাধীনতার সংগ্রামের ঐতিহাসিক ৬ দফার ঘোষনা এই মাঠেই দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। স্বাধীন বাংলাদেশের এমন কোন সরকার প্রধান কিংবা দলীয় প্রধান নেই যিনি লালদিঘীর মাঠে ভাষন দেননি৷ একই ভাবে স্বৈরাচার বিরোধী নানান আন্দোলন, সংগ্রাম, বিক্ষোভে লাখ লাখ জনতার পদভারে প্রকম্পিত হওয়ার ইতিহাসও রয়েছে লালদিঘি ময়দানের।

চট্রগ্রামের রাজনৈতিক ইতিহাসের কালের সাক্ষী এই মাঠ সাজছে নতুন রুপে। তৈরি হচ্ছে নতুন মুক্ত মঞ্চ। ন্যাড়া বালুময় এই মাঠে বিছানো হচ্ছে সবুজ ঘাস। আর খোদাই ‌ করে বসানো হয়েছে ছয় দফার বিবরণ। তৈরি হয়েছে ওয়াক-ওয়ে।

নগরের জেল রোডের শেষ সীমানায় এর অবস্থান। মোট ২.৭০ একর জায়গা জুড়ে অবস্থিত লালদিঘি। স্থানীয় সংসদ সদস্য ও শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের প্রচেষ্ঠায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে মুজিব বর্ষ কে কেন্দ্র করে লালদিঘীর মাঠকে নতুন রুপে সাজানো হচ্ছে। বহুমাত্রিক ব্যবহার এর বিষয়টি মাথায় রেখে মাঠের চারিদিকে তৈরি হচ্ছে ২ফিট পায়ে চলার রাস্তা। বাউন্ডারি ওয়াল এর পরিবর্তে তৈরি হয়েছে বসাবার স্থান। ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে এই মাঠের ইতিহাস তুলে ধরার উদ্দেশ্যে এর দেয়ালে খোদাই করে বসানো হচ্ছে ৬ দফার বিবরণ। যা জনসমাবেশে প্রথম এই লালদিঘী মাঠে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেছিলেন। ইতিমধ্যে মাঠের দক্ষিন পাশে মুক্ত মঞ্চে পিছনে শেখ মুজিবুর এর ইতিহাসিক ৬ দফার ম্যুরাল স্থাপন করা হয়েছে।

ট্যাগ :