বাংলাদেশ, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

শিরোনাম

আলোচিত মিতু হত্যা : সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা:


প্রকাশের সময় :১২ মে, ২০২১ ৮:১৭ : পূর্বাহ্ণ

চট্টগ্রামের বহুল আলোচিত মাহমুদা খানম মিতু হত্যা মামলায় তার স্বামী সাবেক এসপি বাবুল আকতারসহ আটজনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে।

আজ (বুধবার) দুপুরে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানায় এ মামলা করেন নিহত মিতুর বাবা সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া।

এর আগে আজ সকালে এ মামলার তদন্তকারী সংস্থা পিবিআইয়ের প্রধান বনজ কুমার মজুমদার সাংবাদিকদের জানান, মিতু হত্যায় বাবুলের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ জন্য নতুন একটি মামলায় তাকে আসামি করা হচ্ছে।

এদিকে আজই চট্টগ্রাম আদালতে ইতিপূর্বে স্ত্রীর হত্যার ঘটনায় স্বামী বাবুল আকতারের করা মামলার ৫৭৫ পৃষ্টার চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে পিবিআই। পিবিআই চট্টগ্রামের উপ পরিদর্শক আজমির হোসেন এই তথ্য জানিয়েছেন। আদালতে পূর্বের মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পরপরই মিতুর বাবা পাঁচলাইশ থানায় হত্যা মামলা করতে পৌঁছান।

আজ রাজধানীতে অনুষ্ঠিত পিবিআই ব্রিফিং এ জানানো হয়, মিতু হত্যায় বাবুলের সম্পৃক্ততার বিষয়ে এরই মধ্যে তার দুই বন্ধু গাজী আল মামুন ও সাইফুল ইসলাম ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

বাবুল আকতারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোমবার ঢাকা থেকে চট্টগ্রামে ডেকে নেয় পিবিআই। বাবুলের শ্বশুর মোশাররফ হোসেনকেও ডেকে নেয়া হয়েছে বন্দরনগরীতে।

২০১৬ সালের ৫ জুন ভোরে ছেলেকে স্কুলে পৌঁছে দিতে বের হওয়ার পর চট্টগ্রাম শহরের জিইসি মোড়ে কুপিয়ে ও গুলি করে হত্যা করা হয় মিতুকে।

ঘটনার পর তৎকালীন এসপি বাবুল আকতার পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলায় তিনি অভিযোগ করেন, তার জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রমের জন্য স্ত্রীকে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে।

তবে শুরুতে মিতুর পরিবাত বাবুলের পক্ষে অবস্থান নিলেও বাবুলের পরকিয়ার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর তার শ্বশুর সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন ও শাশুড়ি সাহেদা মোশাররফ এই হত্যার জন্য বাবুল আকতারকে দায়ী করে আসছিলেন।

শুরু থেকে চট্টগ্রামের ডিবি মামলাটির তদন্ত করে। পরে ২০২০ সালের জানুয়ারিতে আদালত মামলাটির তদন্তের ভার পিবিআইকে দেয়।

ট্যাগ :